থানায় মামলা করতে এসে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার ছাত্রলীগ নেতা জাকির

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ
শরীয়তপুর সদর পালং মডেল থানায় মামলা করতে এসে হামলার শিকার হয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগর শাহাবাগ থানা ছাত্রলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক মোঃ জাকির হোসেন কোতোয়াল ।

১৬ নভেম্বর মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে ছোট ভাই মেহেদীর উপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে পালং মডেল থানায় মামলা করতে আসেন ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ নেতা মোঃ জাকির হোসেন কোতোয়াল ও তার বড় ভাই মোঃ মনির হোসেন কোতোয়াল। থানা থেকে বের হয়ে মামলার এজাহার সংশোধনী করতে শরীয়তপুর ইসলামীয়া ফাজিল মাদ্রাসা সংলগ্ন মাদানী কম্পিউটার এন্ড টেনিং সেন্টারে গেলে শরীয়তপুরের চিহ্নিত সন্ত্রাসী প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হন, জাকির হোসেন কোতোয়াল ও তার বড় ভাই মনির হোসেন কোতোয়াল।

জাকির হোসেনের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায় যে, শরীয়তপুর সদর উপজেলা ডোমসার ইউপি নির্বাচন ইস্যুতে ১৪ নভেম্বর তেঁতুলিয়া গ্রামে নব-নির্বাচিত মেম্বার আলী আজগর খান, সাবেক মেম্বার মতিন ছৈয়াল, দুই মেম্বার সমর্থকদের মধ্যে সহিংসতার ইস্যুতে তেঁতুলিয়া গ্রামে মিলন হাওলাদারের দোকানের সামনে, মেম্বার মতিন ছৈয়াল ও বাচ্চু বেপাীর সমর্থকরা কুঁপিয়ে জখম করে ছোট ভাই মেহেদী কোতোয়ালকে, ঐ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে পালং মডেল থানায় মামলা করতে গিয়ে ছিলেন জাকির কোতোয়াল ও তার বড় ভাই মনির কোতোয়াল।

ছাত্রলীগ নেতা মোঃ জাকির হোসেন কোতোয়াল ও মনির হোসেন কোতোয়াল বর্তমান ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেন কোতোয়াল ও মনির হোসেন কোতোয়াল এর উপর হামলাকারীদের বিরূদ্ধে ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেন এর মা মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে পালং মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
এই ব্যাপারে পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আক্তার হোসেন এর সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার কোন স্বাক্ষাৎ মেলেনি।

Facebook Comments

About T. M. Golam Mostafa

Check Also

গোসাইরহাটের ঠান্ডার বাজার মেঘনা নদীতে থামছেনা অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন

আজকের শরীয়তপুর প্রতিবেদকঃ শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাটের পূর্ব কোদালপুর ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ড ঠান্ডার বাজার মেঘনা …