শরীয়তপুরে যৌতুক না দেয়ায় স্ত্রী হত্যার রায়ে: স্বামীর মৃত্যু দন্ড

আজকের শরীয়তপুর প্রতিবেদক:

শরীয়তপুরে যৌতুক না দেয়ায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। তাছাড়া ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

২২ ফেব্রুয়ারি সোমবার বিকেল ৪টার দিকে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুস ছালাম খান এ আদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত এবাদুল হক মৃধা (২৫) সদর দক্ষিণ ভাষানচর গ্রামের ছমেদ মৃধার ছেলে।

২০১৮ সালের ১৫ মে বিকেল ৫টার দিকে মধুর বাবার বাড়ি থেকে ৬০ হাজার টাকা যৌতুক আনার জন্য চাপ প্রয়োগ করে এবাদুল। যৌতুকের টাকা আনতে অস্বীকার করলে মধুকে প্রথমে মারধর করে, পরে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এবাদুল। ওইদিন স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে মধুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

এ ঘটনায় ১৬ মে নিহতের মা আমেনা বেগম (৫৬) সদরের পালং মডেল থানায় সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় মধুর স্বামী এবাদুল হক মৃধা, ভাসুর শাহ আলম মৃধা, দ্বীন ইসলাম মৃধা, সাইদুল মৃধা, শ্বশুর ছামেদ মৃধা শাশুরি রিজিয়া বেগম, ঝা রুজিনা বেগমকে আসামি করা হয়।

এবিষয়ে পালং মডেল থানার পুলিশ একজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়। সাতজন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এবাদুল হক মৃধার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিচারক তাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন । অপর তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ না থাকায় তাদের বেকসুর খালাস দেন।

শরীয়তপুরের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মির্জা হজরত আলী বলেন, যৌতুক না দেয়ায় স্ত্রী মধুকে হত্যা করেছে ঘাতক স্বামী এবাদুল। আমরা এ রায়ে খুশি হয়েছি।

 

 

 

 

 

 

Facebook Comments

About T. M. Golam Mostafa

Check Also

আল্লামা শাহ সূফি মোহাম্মদ আলী চিশতি ওরফে আক্কেল চাঁন ফকির আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার: শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়নে হযরত ইছব চাঁন চিশতি (রহ:) প্রতিষ্ঠিত চাঁন্দনী …