শরীয়তপুরের সফল ইউ ডি সি উদ্যোক্তা মুক্তা রাণীর ছবি ব্যবহার করে ভূয়া আইডি খুলে তার সম্মানহানীর অপচেষ্টা

আজকের শরীয়তপুর ডেস্ক:
সফল ইউ ডি সি উদ্যোক্তা মুক্তা রাণীর ছবি ব্যবহার করে ভূয়া আইডি খুলে তার সম্মানহানীর অপচেষ্টা চালাচ্ছে দুর্বৃত্তরা। বিঝারী ইউনিয়ন যুব সম্প্রদায় নামে ভূয়া আইডির মাধ্যমে মুক্তা রাণীর বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, নানা অশ্লীল প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছে দুর্বৃত্ত দল।
শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বড্ডা গ্রামের মনোরঞ্জন মন্ডলের কন্যা মুক্তা রাণী বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদের ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (ইউ ডি সি) উদ্যোক্তা হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে সফলভাবে কাজ করে আসছেন। অবৈধ ও অনৈতিক দাবী-দাওয়া আদায় করতে না পেরে বিশেষ মহলে চক্ষুশুল হয়ে উঠেন মুক্তা রাণী। ফলশ্রুতিতে তাকে সমাজের চোখে হেয় প্রতিপন্ন করে তার ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকে তাকে সরানোর জন্য এ অপচেষ্টা বলে জানা যায়। এলাকার একাধিক ব্যক্তির সাথে কথাবলে বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে।

বিষয়টির প্রতিকার চেয়ে ইতোমধ্যেই মুক্তা রাণী গত ১৬ ফেব্রুয়ারী নড়িয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন। ডাইরি নং ৭০১/১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ ইং।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, তিনি ২০১০ সাল থেকে শতভাগ সততা ও দক্ষতার সহিত কাজ করে আসছেন। ২০১৩-২০১৫ ইং সালে শরীয়তপুর জেলার শ্রেষ্ট ইউ ডি সি উদ্যোক্তা হিসেবে নির্বাচিত হন এবং ২০১৮ সালে দেশের সেরা ইউ ডি সি উদ্যোক তার বিরুদ্ধাচারণকারীদের আইনের আওতায় আনা প্রয়োজন।

মুক্তা রাণীর কাছে বিষয়টি জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমি নড়িয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছি। এবং জেলা প্রশাসক শরীয়তপুর বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ ও ডায়রির অনুলিপি জমা দিয়েছি । তাছাড়াও মাননীয় পানি সম্পদ উপ-মন্ত্রী একে এম এনামুল হক শামীম মহোদয়কে অবগত করেছি। কে বা কারা আমার সম্মান হানির জন্য আমার ছবি দিয়ে বেশ কয়েকটি ভূয়া আইডি খুলে আমাকে সমাজের কাছে হেয় প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমার জীবন নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে আমি সঠিক বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

বিষয়টি সম্পর্কে ইউপি সচিব সেলিনা নাসরিন বলেন, মুক্তা রণীর ছবি ব্যবহার করে একাধিক বিভিন্ন নামে ভূয়া আইডি আমার নজরে এসেছে। উক্ত আইডির মাধ্যমে মুক্তা রাণীর চরিত্র হননের চেষ্টা চলছে। মুক্তা অত্যন্ত দক্ষ ও সৎ কর্মী।

বিঝারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদার আজকের শরীয়তপুরকে মুঠোফোনে বলেন, ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। মুক্তা রাণীর সম্মান হানীর জন্য কুচক্রী মহল কাজ করতেছে। ইতোমধ্যেই বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, এব্যাপারে ভিক্টিম একটি সাধারণ ডায়রি করেছে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Facebook Comments

About T. M. Golam Mostafa

Check Also

শরীয়তপুরে আজও গ্রেফতার হয়নি ধর্ষণ মামলার আসামী রাশেদ!!

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ  আজও গ্রেফতার হয়নি শরীয়তপুর পৌর বাসস্টান্ড সংলগ্ন মেসার্স আলী উজ্জামান মীর মালত এন্টারপ্রাইজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *