এসিল্যান্ড ফাতেমা খাতুন সততা ও দক্ষতার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন

আজকের শরীয়তপুর রিপোর্ট:// শরীয়তপুর সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি (এসিল্যান্ড) ফাতেমা খাতুন সততা ও দক্ষতার সাথে নিজ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০ সনে শরীয়তপুর সদর উপজেলার এসিল্যান্ড পদে যোগদান করে তিনি শতভাগ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে জনগণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।
কুমিল্লার কৃতি সন্তান ফাতেমা খাতুন ৬ জুন ১৯৯১ সনে মনহরবানু উপজেলার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তার বাবার নাম মোঃ সেলিম উল্লাহ, মা আয়েশা বেগম। ফাতেমা খাতুন প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার ধাপ সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করে ইস্টার্ণ ইউনিভার্সিটি থেকে ইংরেজী সাহিত্যে অনার্স ও মাস্টার্স কৃর্তিত্বের সাথে সম্পন্ন করে ৩৫ তম বিসিএস উত্তীর্ণ হয়ে প্রশাসন ক্যাডারে যোগদান করেন। চাকুরী জীবনে তিনি ঢাকা ও কুড়িগ্রাম জেলায় দায়িত্ব পালন করেন।
১৬ ফেব্রুয়ারী ২০ সনে তিনি শরীয়তপুর জেলা প্রশাসনের অধীন শরীয়তপুর সদর উপজেলার এসিল্যান্ড পদে যোগদান করে অদ্যবধি সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।
ফাতেমা খাতুন শতভাগ পেশাদারিত্ব বজায় রেখে ভূমি সেক্টরের দীর্ঘদিনের জটিলতা নিরসনে ভূমিকা পালন করে চলছেন। নিজ কর্মগুনে তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রশংসা কুড়াচ্ছেন। ফাতেমা খাতুন কর্মে বিশ্বাসী। প্রতিদিনের কর্ম সম্পাদনে তিনি সদা তৎপর। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। অধীনস্থের সাথে তার সুসম্পর্ক সর্বজন বিদীত। তার দপ্তরে কাজ করতে গিয়ে শরীয়তপুর সদর উপজেলার সর্ব শ্রেণির পেশার লোকজন চরম সন্তুষ্ট।
ফাতেমা খাতুন ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত। স্বামী শফিউল মাজলুবিন রহমান ৩৫ তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের সহকারী কমিশনার পদে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে কর্মরত। করোনাকালীন সময়ে প্রশাসন ক্যাডারে এ দম্পত্তি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করে করোনায় আক্রান্ত হন।
জীবনবান্ধব ফাতেমা খাতুন দায়িত্ব পালনে সকলের সহযোগিতা কামনা করছেন।

Facebook Comments

About Sm Sohage

Check Also

প্রাণঢালা অভিনন্দন কাজী আবু তাহের, শুভেচ্ছা ও স্বাগতম পারভেজ হাসান

মো: নাসির খাঁন// গত ২ বছর ৭ মাস দায়িত্ব পালন শেষে ০৮ অক্টোবর শরীয়তপুরের বিদায়ী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *