সাবেক এমপি এডভোকেট নাভানা আক্তার শরীয়তপুরের মাটি ও মানুষের উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিশীল

আজকের শরীয়তপুর রিপোর্ট ঃ
দশম জাতীয় সংসদের সাবেক এমপি, জননেত্রী এডভোকেট নাভানা আক্তার একজন জনবান্ধব সেবক হিসেবে শরীয়তপুরের মাটি ও মানুষের উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিশীল।
অতি সম্প্রতি কথা হয় এডভোকেট নাভানা আক্তারের সঙ্গে। অত্যন্ত সাদামাটাভাবে তিনি তার অতীত ভবিষ্যৎ সাবলিল কণ্ঠে ব্যক্ত করেন। একজন পূর্ণাঙ্গ রাজনৈতিক হিসেবে নিজের উপলব্ধি ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে সেবাব্রত পথ পরিক্রমায় সাবধানতার সঙ্গে মাটি ও মানুষের সঙ্গে মিশে এগিয়ে যেতে চাচ্ছেন তিনি।
ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত এডভোকেট নাভানা আক্তার এমপি। তিনি সরকারি বদরুন্নেছা মহিলা কলেজ শাখা বংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ইডেন মহিলা কলেজ শাখার সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ যুব মহিলালীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক, নড়িয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ সম্পাদক, সদস্য, শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগ, সাবেক সদস্য, মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও দশম জাতীয় সংসদের সদস্য হিসেবে সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন।
যখন যে দায়িত্ব অর্পণ করা হয়েছে এডভোকেট নাভানা আক্তারের প্রতি সে দায়িত্ব শতভাগ সততা, দক্ষতা ও সফলতার সাথে পালন করেন চ্যালেঞ্জ নিয়ে। দায়িত্ব পালনকারী সময়ে কোন প্রকার অস্বচ্ছতা, অনুকম্পা, আত্মীকরণ, অনুরাগ, স্বজনপ্রীতি, দুর্নীতি তাকে স্পর্শ করতে পারেনি। কখনই কোন আমিত্ব ভাব তার সাথে ছিল না। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও টেকসই উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাসী তিনি। সারা পৃথিবী যেখানে দূর্নীতিগ্রস্থ সেথানে তিনি অত্যন্ত সচেতনতার সঙ্গে দূর্নীতিমুক্ত থেকে জনসেবা করেছেন। তার বিরুদ্ধে কোথাও কোন অভিযোগ নেই।
রাজনৈতিকভাবে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সঙ্গে জীবনে মরণে সম্পৃক্ত। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব, মহান স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর আদর্শে অনুপ্রাণিত তিনি। দলের দুুর্দিনে, দুঃসময়ে তিনি জীবনবাজি রেখে দলীয় কর্মসুচি বাস্তবায়ন করেছেন। দলকে, দলীয় কর্মসূচিকে, দলীয় নেতৃবৃন্দকে জীবনের চেয়ে বেশী ভালবাসেন এডভোকেট নাভানা আক্তার। জাতির জনকের কন্যা, জননেত্রী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের মাধ্যমে একটি ক্ষুধা, দারিদ্র, দুর্নীতিমুক্ত আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মানে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।
দলের জন্য কাজ করতে পেরে তিনি আপ্লুত। আগামীদিনে ব্যাপকভাবে কাজ করতে আগ্রহী নাভানা আক্তার। শুধু জাতীয় নয়, জাতীয় রাজনীতির সঙ্গে তিনি স্থানীয় রাজনীতিতে তিনি তার এলাকা শরীয়তপুর জেলাকে ঢেলে সাজাতে ও শরীয়তপুরের মাটি ও মানুষের সেবা করতে প্রতিশ্রুতিশীল।
এডভোকেট নাভানা আক্তার ১৯৭৫ সালে শরীয়তপুর জেলাধীন, নড়িয়া উপজেলার অন্তর্গত, ঘড়িসার ইউনিয়নের বাহিরকুশিয়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম সৈয়দ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি এমএসসি, এলএলবি ডিগ্রী অর্জন করে আইনজীবি পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন। আইনাঙ্গনে যথেষ্ট সুনাম দক্ষতা ও সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।
জীবনের সকল ক্ষেত্রে সততা ও স্বচ্ছতাকে পুঁজি করে তিনি আজকের অবস্থ্ায় পৌঁছেছেন। কঠোর পরিশ্রম ও সীমাহীন সাধনা করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন এডভোকেট নাভানা আক্তার।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি অত্যন্ত সাদামাটা। সর্বদা হাঁস্যোজ্বল ও বন্ধুসুলভ। হিংসা-প্রতিহিংসা মুক্ত অতিথি পরায়ণ বলে তার যথেষ্ট সুনাম রয়েছে।
যে কোন মানুষ তার নিকট সহসাই যেতে পারেন। সকাল-সন্ধ্যা সকলের জন্য তার দুয়ার খোলা থাকে। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ অভাব-অভিযোগ, হাসি-কান্নার কথা শুনতে হয় এডভোকেট নাভানা আক্তারকে। সকল কথা শুনে সাধ্যমত সাহায্য-সহযোগিতার হাত বাড়াতে কোন কৃপণতা করেন না তিনি। যতটা সম্ভব, যতটুকু সম্ভব দেয়াই তার চিরায়ত অভ্যাস।
তিনি শরীয়তপুরের মাটি ও মানুষের নিকট ঋণী বলে জানিয়েছেন। এ মাটি ও মানুষের ভালবাসা ও সমর্থন নিয়ে তিনি দশম জাতীয় সংসদ সদস্য মনোনীত হয়েছেন। আগামীদিনে সকলে তার চলার সহযোদ্ধা, সহযাত্রী হিসেবে পাশে থাকবে এ প্রত্যাশা তিনি লালন করেন।
সাবেক এমপি এডভোকেট নাভানা আক্তার শরীয়তপুরের সকল স্তরের মানুষকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও সালাম জানিয়ে জননেত্রী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ গড়ার কাজে সকলকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাবার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

Facebook Comments

About Sm Sohage

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *